Breaking News

তরুণীর টাকা হাতিয়ে রাবির ছাত্রের গ’রু’র খামার

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে প্রতারণা করে এক তরুণীর কাছ থেকে সাড়ে সাত লাখ টাকা হাতিয়ে নিয়েছেন এম ওয়াদুদ জিয়া জুয়েল (৩০) নামে এক যুবক। সেই টাকা দিয়ে তিনি জমি কিনেছেন। গড়ে তুলেছেন গরুর খামার। কিন্তু শেষ রক্ষা হয়নি।

বুধবার (১৩ অক্টোবর) সকাল ৯টার দিকে নগরীর বোয়ালিয়া মডেল থানার মকবুল হালদারের মোড় এলাকা থেকে তাকে গ্রেফতার করেছে মহানগর গোয়েন্দা পুলিশ।
গ্রেফতার এম ওয়াদুদ জিয়া জুয়েল দিনাজপুরের নবাবগঞ্জ উপজেলার বাঘাডুবি ভবানীপুর গ্রামের জাকারিয়া আনসারীর ছেলে। তিনি রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ব্যবস্থাপনা বিভাগে বিবিএ ও এমবিএ সম্পন্ন করেছেন।

ভুক্তভোগী তরুণী রাজশাহী নগরীর বাসিন্দা। তার পরিবারের অভিযোগের প্রেক্ষিতেই অভিযুক্ত জুয়েলকে গ্রেফতার করে গোয়েন্দা পুলিশ। বুধবার (১৩ অক্টোবর) দুপুরের দিকে নিজ দফতরে সংবাদ সম্মেলন করে অভিযানের আদ্যপান্ত জানান রাজশাহী মহানগর পুলিশের কমিশনার আবু কালাম সিদ্দিক।

তিনি বলেন, ২০১৯ সালে আমিনুল ইসলাম নামে এক যুবকের সঙ্গে ভুক্তভোগী ওই তরুণীর ফেসবুকে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে। মেসেঞ্জারে তাদের নিয়মিত যোগাযোগ হলেও কখনো সাক্ষাৎ হয়নি। অভিযুক্ত জুয়েল আমিনুল ইসলামের ফেসবুক আইডি হ্যাক করেন। এরপর নিজেই আমিনুল সেজে ওই তরুণীর সঙ্গে প্রেমের অভিনয় শুরু করেন।

কিছুদিন পর জুয়েল আরেকটি ফেসবুক আইডি খোলেন। সেই আইডি থেকে নিজেকে ওই তরুণীর প্রেমিকের ঘনিষ্ট বন্ধু পরিচয় দেন। পরে প্রেমিকের সঙ্গে ওই তরুণীর বিয়ের প্রস্তাব দেন। এই প্রস্তাব নিয়ে তিনি তরুণীর বাড়িতেও যান। সেখানে নিজের ল্যাপটপ হারানোর অজুহাত দেখিয়ে তরুণীর মায়ের কাছ থেকে ৫০ হাজার টাকার চেক নেন।

রাজশাহী মহানগর পুলিশের কমিশনার আবু কালাম সিদ্দিক অভিযুক্ত জুয়েল আরেকটি ফেসবুক আইডি খুলে মেসেঞ্জারে ওই তরুণীর সঙ্গে যোগাযোগ করে জানান, তার প্রেমিক আমিনুল ডেঙ্গু জ্বরে আক্রান্ত হয়ে ঢাকার স্কয়ার হাসপাতালে চিকিৎসাধীন। চিকিৎসার নামে তার কাছ থেকে ৩ লাখ টাকা হাতিয়ে নেন জুয়েল।

আমিনুলের অসুস্থতার খবরে তরুণী ও তার পরিবার তাকে দেখতে ঢাকার উদ্দেশ্যে রওনা হয়। ওই সময় জুয়েল তরুণীকে তার প্রেমিকের মৃত্যুর সংবাদ দেন। জানান, ঢাকায় আসার প্রয়োজন নেই, মরদেহ আমিনুলের গ্রামের বাড়িতে নেয়া হচ্ছে।

এর কিছুদিন পরে প্রতারক জুয়েল আরকটি ভুয়া আইডি খুলে আমিনুলের বোন পরিচয়ে ওই তরুণী সঙ্গে ফের যোগাযোগ করেন। ওই সময় ভাইয়ের চিকিৎসার জন্য তিন লাখ টাকা দেওয়ায় তরুণীকে ধন্যবাদ দেন। একই সঙ্গে সেই টাকা ফিরিয়ে দেওয়ার প্রতিশ্রুতি দেন।

এরপর আমিনুলের বোন পরিচয়ে ওই তরুণীর সঙ্গে ঘনিষ্টতা বাড়ান জুয়েল। একপর্যায়ে নিজের চাকরির নামে সাত লাখ টাকার প্রয়োজন বলে তরুণীকে জানান। ওই সময় তিন লাখ টাকা পরিবার জোগাড় করলেও বাকি চার লাখ টাকা ওই তরুণীর কাছে চান। পরে চার লাখ টাকাও দিয়ে দেন ওই তরুণী। এরপর থেকেই সবগুলো আইডি বন্ধ করে দেন জুয়েল।

পুলিশ জানায়, প্রতারণার বিষয়টি টের পেয়ে ভুক্তভোগী ওই তরুণী ও তার পরিবার প্রথমে পুলিশের কাছে মৌখিক অভিযোগ দেন। এরপর প্রতারককে ধরতে নগর গোয়েন্দা পুলিশকে নির্দেশ দেন পুলিশ কমিশনার। ভুয়া ফেসবুক আইডিগুলো পর্যালোচনা করে প্রতারককে শনাক্ত করে গোয়েন্দা পুলিশ। এরপর বুধবার সকালে অভিযান চালিয়ে তাকে গ্রেফতার করা হয়।

মহানগর পুলিশের কমিশনার আবু কালাম সিদ্দিক বলেন, জিজ্ঞাসাবাদে অভিযুক্ত জুয়েল প্রতারণার কথা স্বীকার করেছেন। তিনি পুলিশকে জানিয়েছেন, প্রতারণার মাধ্যমে ওই তরুণীর কাছ থেকে আত্মসাৎ করা টাকায় নিজ এলাকায় জমি কিনেছেন। সেখানে গরুর খামারও গড়ে তুলেছেন। প্রতারণায় ব্যবহৃত তার আরও ৯টি ভুয়া ফেসবুক আইডি পেয়েছে পুলিশ। এ নিয়ে তার বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে।

About desk

Check Also

প্রকৌশলীর মোটরসাইকেল আটক করায় ট্রাফিক অফিসে বিদ্যুৎ সংযোগ বিচ্ছিন্ন

ভ্রাম্যমাণ আদালত বসিয়ে মোটরসাইকেল ও অন্যান্য যানবাহন চেকিং করছিল ট্রাফিক পুলিশ। সেখানে নর্দার্ন ইলেকট্রিসিটি সাপ্লাই …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *