Breaking News

রাস্তার মালিকানা দাবি করে কেটে দিলেন, এলাকাবাসীর চলাচলে বাধা

ত্রিশ বছর আগের ইউনিয়ন পরিষদের নির্মিত রাস্তার মালিকানা দাবি করে রাস্তা কেটে চলাচলে প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি করার অভিযোগ উঠছে প্রতিপক্ষের বিরুদ্ধে। সোমবার বাকেরগঞ্জ উপজেলার গারুড়িয়া ইউনিয়নের ৪নং ওয়ার্ডের খয়রাবাদ গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।এ ঘটনায় সৈয়দ মোফাজ্জল হোসেনের ছেলে সৈয়দ মো. মাহবুবুর রহমান বাদী হয়ে বাকেরগঞ্জ থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন। ঘটনার তিন দিন পার হলেও রাস্তাটি সংস্কার না করায় চরম দুর্ভোগে পড়ছেন এলাকাবাসী।

জানা যায়, একটি প্রাথমিক বিদ্যালয় ও একটি গ্রামীণ বাজারে যাতায়াত করার জন্য প্রায় বছর ত্রিশেক আগে ইউনিয়ন পরিষদ রাস্তাটি নির্মাণ করে। ওই থেকে খযরাবাদ ও গারুড়িয়া গ্রামের কয়েক শতাধিক পথচারী নিয়মিত যাতায়াত করেন রাস্তাটি দিয়ে।এছাড়াও গারুড়িয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শতাধিক ছাত্রছাত্রী রাস্তাটি দিয়ে চলাচল করে। কিন্তু ২০০৫ সালে ক্রয়সূত্রে কিছু জমির মালিকানা দাবি করে ওই এলাকার হারুন মুন্সি ও জাহাঙ্গীর মুন্সি সোমবার সকালে রাস্তাটি আড়াআড়িভাবে কাটতে শুরু করেন। এ ঘটনায় এলাকাবাসী পুলিশকে জানালে পুলিশ গিয়ে মাটি কাটা বন্ধ করে দেয়। ততক্ষণে রাস্তা আড়াআড়ি ২ থেকে ৩ ফুট গর্ত করে ফেলেন।

এলাকাবাসী জানান, এ রাস্তা দিয়ে গারুড়িয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ও মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের শত শত ছাত্রছাত্রী যাওয়া-আসা করে এবং খয়রাবাদ বাজারের লোকজন আসা-যাওয়া করেন। খয়রাবাদ বাজার ব্রিজসংলগ্ন থেকে খয়রাবাদ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় পর্যন্ত এই রাস্তাটি খুবই গুরুত্বপূর্ণ। চলাচলের জন্য প্রায় ৩০-৪০ বছর আগে স্থানীয় ইউনিয়ন পরিষদের আওতায় মাটি কেটে রাস্তা নির্মাণ করা হয়। সেই থেকে ওই রাস্তা দিয়ে এলাকার লোকজন চলাচল করছে।

এলাকাবাসী আরও জানান, একই গ্রামের সৈয়দ মোফাজ্জল হোসেনের ছেলে সৈয়দ মাহবুবুর রহমানের সঙ্গে দ্বন্দ্বের জেরে রাস্তা কেটে চলাচল বন্ধ করে দেন। এমতাবস্থায় এ পথে গাড়ি চলাচল করতে না পারায় সাধারণ মানুষের বিভিন্ন মালামাল আনা-নেওয়ায় ভোগান্তির সৃষ্টি হয়েছে। কখনো মাথায় আবার কখনো কাঁধে করে চলাচলকারীদের মালামাল বহন করতে হচ্ছে। ফলে অসহনীয় দুর্ভোগে পড়েছেন গ্রামবাসী।

মাহবুবুর রহমান বলেন, আমার সঙ্গে কারও কোনো দ্বন্দ্ব থাকলে আইনগত ব্যবস্থা নেবে। ওই রাস্তা দিয়ে আমি একা চলাচল করি না। এলাকাবাসীর রাস্তা একার জন্য কাটতে পারে না।
এ বিষয়ে জানতে চাইলে জাহাঙ্গীর মুন্সি জানান, রাস্তা আমাদের জমির মধ্যে, রাস্তা দিয়ে চলাচল করতে চাইলে আমাদের সঙ্গে সমঝোতা করেই চলতে হবে।
এ বিষয়ে বাকেরগঞ্জ থানার ওসি আলাউদ্দিন মিলন জানান, তদন্ত করে কোনো অনিয়ম পেলে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

About desk

Check Also

সন্তানকে বাঁচাতে কুমিরকে পি’ষে মা’র’ল হা’তি (ভিডিও)

হাতি অত্যন্ত শান্ত স্বভাবের প্রাণী। কিন্তু কেউ সন্তানকে আক্রমণ করলে হাতিও হয়ে উঠতে পারে ভয়ঙ্কর। …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *