সভাপতির ঘু’ষিতে দাঁ’ত ভা’ঙল প্রধান শিক্ষকের

বগুড়ার নন্দীগ্রামে স্কুলের ম্যানেজিং কমিটির সভাপতির ঘুষিতে প্রধান শিক্ষকের তিনটি দাঁত ভেঙে গেছে বলে অভিযোগ উঠেছে। আহত প্রধান শিক্ষক সাজ্জাদুল ইসলাম দুদুকে (৫৫) আজ শুক্রবার সকালে বগুড়া শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ (শজিমেক) হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। গতকাল বৃহস্পতিবার

সন্ধ্যায় নন্দীগ্রাম উপজেলার পন্ডিতপুকুর বাজারে ঘটনাটি ঘটে। এ সময় ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি শামিম হোসেন লিটন শিক্ষক সাজ্জাদুল ইসলামকে ঘুষি দিলে তিনটি দাঁত ভেঙে যায়। সাজ্জাদুল ইসলাম একই উপজেলার ভর তেতুলিয়া উচ্চবিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক।

সাজ্জাদুল ইসলামের স্ত্রী ও একই উপজেলার কোশাস উচ্চবিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক মঞ্জুয়ারা বেগম জানান, বৃহস্পতিবার বেলা ১১টার দিকে কোশাস উচ্চবিদ্যালয়ে ম্যানেজিং কমিটির সভা হয়। সভায় ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি শামিম হোসেন লিটন চারজন শিক্ষক নিয়োগের বিষয় নিয়ে উত্তেজিত হয়ে

নোটিশ খাতা ছিড়ে ফেলেন। ওই দিন সন্ধ্যায় সাজ্জাদুল ইসলাম পন্ডিতপুকুর বাজারে যান। বাজারে গিয়ে শামিম হোসেনের কাছে নোটিশ খাতা ছিড়ে ফেলার কারণ জানতে চান। এনিয়ে দুজনের মধ্যে বাকবিতণ্ডা শুরু হয়। এক পর্যায়ে শামিম হোসেন ক্ষিপ্ত হয়ে ওই শিক্ষককে ঘুষি মারে। এ সময় তার সামনের তিনটি দাঁত ভেঙে পড়ে যায়। পরে তাকে স্থানীয় স্বাস্থ্যকমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়। সেখান থেকে উন্নত চিকিৎসার জন্য শুক্রবার তাকে বগুড়া শজিমেক হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

শিক্ষককে মারধরের বিষয়ে জানতে চাইলে কোশাস উচ্চবিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি শামিম হোসেন লিটন বলেন, ‘সাজ্জাদুল ইসলামের সঙ্গে হাতাহাতির ঘটনা ঘটেছে। তিনি দোকান থেকে দ্রুত বের হয়ে যাওয়ার সময় গেটে ধাক্কা লেগে দাঁত পড়ে যায়।’নন্দীগ্রাম থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আবুল কালাম আজাদ বলেন, ‘এ সংক্রান্ত একটি অভিযোগ পাওয়া গেছে। বিষয়টি তদন্ত করে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’

About desk

Check Also

মাত্র পাওয়াঃ ষষ্ঠ-নবম শ্রেণির বার্ষিক ও প্রাক নির্বাচনি পরীক্ষা বিষয়ে মাউশির নির্দেশনা

আগামী ২৪ নভেম্বরের থেকে ষষ্ঠ-নবম শ্রেণিতে অধ্যায়নরত শিক্ষার্থীদের বার্ষিক পরীক্ষা এবং দশম শ্রেণির শিক্ষার্থীদের প্রাক …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *