বকেয়া বিদ্যুৎ বিল আদায়ে ৬ দফা পদক্ষেপ

বন্ধুত্বপূর্ণ এবং পিডিএফ প্রিন্ট করুন

বিদ্যুৎ বিল বকেয়া আদায়ের জন্য point দফা পদক্ষেপ!
বিদ্যুৎ প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামেদ বলেছেন,ত্রুটিযুক্ত বিদ্যুৎ বিল দ্রুত সংশোধন করে মহামারী চলাকালীন বিদ্যুতের বকেয়া আদায়ের জন্য ছয়টি পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে।

সোমবার সংসদে চট্টগ্রাম  ৩ সাংসদ মাহফুর-উর-রেহমানের প্রশ্নের জবাবে স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী এ কথা বলেন।

তিনি বলেন, করোনার ভাইরাস সংক্রমণ রোধে সরকার 26 শে মার্চ থেকে দেশব্যাপী সরকারি ছুটি ঘোষণা করেছে। লকডাউন বাস্তবায়নের কারণে ভোক্তাদের যে অসুবিধা হয়েছে তা বিবেচনা করে আবাসিক গ্রাহকদের ফেব্রুয়ারি, মার্চ, এপ্রিল এবং মে মাসে 30 জুন অবধি কোনও বিদ্যুৎ ছাড়াই তাদের বিদ্যুতের বিল পরিশোধ করার সুযোগ দেওয়া হয়। বর্তমানে সর্বাধিক’ গ্রাহকগণ বিল পরিশোধ না করায় বিপুল পরিমাণ বকেয়া উৎপন্ন হয়েছে।

বকেয়া আদায়ের জন্য গৃহীত পদক্ষেপের কথা তুলে ধরে প্রতিমন্ত্রী বলেন, এক মাসের বেশি কোনও ইউনিট বেশ কয়েক মাস ধরে বিল দিতে হবে না। মাসিক ভিত্তিতে পৃথক বিদ্যুৎ বিল উত্পাদন একবারে আরও ইউনিট বিল পরিশোধ করে উচ্চতর শুল্ক চার্জ না করা ত্রুটিযুক্ত বা অতিরিক্ত বিলগুলি দ্রুত সংশোধনের ব্যবস্থা করুন। ২০২০ সালের মে মাসে ((যা জুনে প্রস্তুত করা হচ্ছে) বিদ্যুতের বিলটি মিটারটি দেখে এবং ঘরে বসে বিদ্যুতের বিল মোবাইল, বিকাশ, জিপি-র মাধ্যমে প্রদানের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। সু্যোগটা কাজে লাগাও রাব্বি নগদ, অনলাইন।

মহামারী চলাকালীন, বিদ্যুৎ বিভাগ ঘরে ঘরে গিয়ে মিটারের দিকে না তাকিয়ে আনুমানিক বিল পরিশোধ করেছিল  যাতে অনেক লোক বড় বিল দেখে অসন্তুষ্টি প্রকাশ করেছিলেন।

এ সময় বিদ্যুৎ বিভাগ গ্রাহকদের বিলে নিয়ে চিন্তা না করার পরামর্শ দেয়। ২৫ জুন, বিদ্যুৎ বিভাগ এমন আধিকারিকদেরও চিহ্নিত করেছিল যারা “উচ্চ বিলে গ্রাহকদের সমস্যা সৃষ্টি করেছিল” এবং সাত দিনের মধ্যে জরিমানার ঘোষণা দিয়েছিল।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *