Breaking News

নিজে বন্দরের সচিব, দিতেন বন্দরে চাকরি!

নিজেকে পরিচয় দেন বন্দরের সচিব। টার্গেট করেন বেকারদের। এরপর তাদের বন্দরে চাকরির প্রলোভন দেখিয়ে হাতিয়ে নেন মোটা অংকের টাকা। আর টাকা নেওয়ার পরই মোবাইল নম্বর বন্ধ করে হয়ে যান লাপাত্তা।
এভাবে একের পর এক প্রতারণা করে গেলেও এবার আর শেষ রক্ষা হয়নি তার। অভিযান চালিয়ে সেই প্রতারককে গ্রেফতার করেছে চট্টগ্রাম নগরের কোতোয়ালি থানা পুলিশ।

বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় এ তথ্য নিশ্চিত করেন থানার ওসি মোহাম্মদ নেজাম উদ্দিন। এর আগে, সকালে নগরের চান্দগাঁও থানার মৌলভীবাজার এলাকা থেকে তাকে গ্রেফতার করা হয়।
গ্রেফতার সেকান্দর আলী ওই এলাকার জাফর আহমেদের ছেলে।

পুলিশ জানায়, রিয়াজউদ্দিন বাজারের এক চা দোকানির কাছে নিজেকে চট্টগ্রাম বন্দরের সচিব বলে পরিচয় দেন সেকান্দর। এরপর তার ছেলেকে বন্দরে চাকরি দেওয়ার কথা বলে চান ১৫ লাখ টাকা। এর পরিপ্রেক্ষিতে ২০১৮ সালের ২৫ ডিসেম্বর অগ্রিম হিসেবে সাড়ে তিন লাখ টাকা দেন ওই ব্যক্তি। এর বিপরীতে জামানত হিসেবে তাকে একটি খালি ব্যাংক চেক দেন সেকান্দর।

এরপর ২০২০ সালের মার্চ মাসে চাকরি পাকা জানিয়ে অবশিষ্ট টাকা দ্রুত দিতে বলেন সেকান্দর। আর তার কথায় বিশ্বাস করে বাকি ১১ লাখ ৫০ হাজার টাকা দিয়ে দেন ওই ব্যক্তি। কিন্তু মার্চ মাস পেরিয়ে গেলেও চাকরির খবর না পেয়ে সেকান্দরের সঙ্গে যোগাযোগের চেষ্টা করলে তার মোবাইল নম্বর বন্ধ পাওয়া যায়।

ওসি মোহাম্মদ নেজাম উদ্দিন বলেন, সেকান্দর প্রতারক চক্রের সক্রিয় সদস্য। নিজেকে বন্দরের সচিব পরিচয়ে দিয়ে বন্দরে চাকরি দেওয়ার কথা বলে বিভিন্ন কৌশলে চাকরি প্রার্থীদের কাছ থেকে অগ্রিম টাকা গ্রহণ করতেন। পরবর্তীতে ইন্টারনেট থেকে ভুয়া নিয়োগপত্র সংগ্রহ করে প্রার্থীদের বাসায় ও ভুয়া পুলিশ ভেরিফিকেশনের কাগজ ডাকযোগে থানায় পাঠাতেন। থানা থেকে চাকরি প্রার্থীদের বাড়িতে পুলিশ গেলে চাকরি হয়ে গেছে জানিয়ে অবশিষ্ট টাকা আদায় করতেন।

ওসি আরো বলেন, প্রতারণা করে জীবিকা নির্বাহ করাই সেকান্দরের একমাত্র উৎস। এভাবে অনেকের কাছ থেকে লাখ লাখ টাকা হাতিয়ে নিয়েছেন তিনি। এমন আরো তিনটি অভিযোগ আমরা পেয়েছি। চক্রটির আরো কিছু সদস্য আছে। তাদের ব্যাপারে আমরা খোঁজ নিচ্ছি।

About desk

Check Also

চলন্ত মোটরসাইকেলে স্ট্রোক, পথেই হলেন লাশ

চট্টগ্রামের সাতকানিয়ায় মোটরসাইকেল নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে এক যুবক নিহত হয়েছেন। রোববার দুপুরে উপজেলার দেউদিঘী এলাকায় এ …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *