মেঝেতে পড়েছিল স্ত্রীর ম’র’দে’হ, আড়ায় ঝু’ল’ছি’ল স্বা’মী

বসতঘর থেকে স্বামী-স্ত্রীর ম’র’দে’হ উদ্ধার করেছে পুলিশ। ঘরের আড়ার সঙ্গে ঝু’ল’ছি’ল স্বামীর ম’র’দে’হ আর স্ত্রীর ম’র’দে’হ পড়েছিল ঘরের মেঝেতে। আজ মঙ্গলবার ভোরে নেত্রকোনার মদন উপজেলার তিয়শ্রী ইউনিয়নের বালালি গ্রাম থেকে তাদের ম’র’দে’হ উদ্ধার করা হয়।

নিহতরা হলেন, মদন উপজেলার নায়েকপুর ইউনিয়নের আলমশ্রী গ্রামের মৃ”ত শাহেদ আলীর ছেলে নান্দু মীর (৬০) ও তার স্ত্রী মেরাজ আক্তার (৪৫)। মেরাজ আক্তার বালালী গ্রামের মৃ”ত আব্দুল মান্নানের মেয়ে।
স্থানীয় ও পুলিশ সূত্রে জানা যায়, প্রায় ৩০ বছর আগে নান্দু মীরের সঙ্গে বিয়ে হয় মেরাজ আক্তারের। দীর্ঘদিন আলমশ্রী গ্রামের বসবাস করার পর ১২ বছর আগে বালালী গ্রামে এসে বাড়ি করে বসবাস করছেন। সংসার জীবনে ১০ বছর বয়সী একটি ছেলে ও ছয় বছর বয়সী একটি মেয়ে সন্তান রয়েছে। প্রতিদিনের মতো

সোমবার রাতে সন্তানদের ঘুম পারিয়ে নিজ ঘরেই মেঝেতে বিছানা পেতে শুয়ে পড়েন তারা। সকালে ঘরের দরজা বন্ধ পেয়ে স্থানীয় লোকজন ডাকাডাকি করলে নিহতদের শিশু ছেলে দরজা খুলে দেয়। এ সময় নান্দু মিয়ার ঝু’ল’ন্ত লা”শ ও তার স্ত্রীকে র’ক্তা’ক্ত অবস্থায় নিচে পড়ে থাকতে দেখে স্থানীয়রা পুলিশকে খবর দেয়।

পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে তদন্তের সার্থে সিআইডি ক্রাইম সীন টিমের অপেক্ষায় দরজা বন্ধ করে রাখেন। ঘটনাস্থল পরিদর্শনে নেত্রকোনা জেলা পুলিশ সুপার আকবর আলী উপস্থিত হওয়ার পর ময়মনসিংহ থেকে সিআইডি তদন্ত দল ও পিবিআই টিম মিলে প্রাথমিক তদন্ত কাজ শেষ করে চলে যান।

মদন থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) ফেরদৌস আলম জানান, স্বামী-স্ত্রীর লা”শ ময়নাতদন্তের জন্য নেত্রকোনা মর্গে পাঠানো হয়েছে। এখন পর্যন্ত থানায় কোনো লিখিত অভিযোগ আসেনি।

About desk

Check Also

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় হিযবুত তাহরীর সদস্য গ্রে’ফ’তা’র।

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার কসবায় হিযবুত তাহরীর (নিষিদ্ধ ঘোষিত জঙ্গি সংগঠন) এক সদস্যকে গ্রেফতার করেছে র‍্যাব। গত শুক্রবার …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *