ঘুমের ওষুধ খাইয়ে পু’ত্রবধূ’কে ধ’র্ষণ, জামিনে এসেও দিচ্ছেন না শা”ন্তি

ঘুমের ওষুধ খাইয়ে ছেলের বউকে ধর্ষণ করায় কারাগারে যেতে হয়েছিল ৪৫ বছর বয়সী শ্বশুর বাচ্চু মিয়া রুমিকে। সেই মামলায় কয়েকদিন আগে জামিন পেয়েছিলেন। কিন্তু জামিনে এসে এবার ছেলের বউকে হত্যাচেষ্টা চালান তিনি। ঘটনাটি কুমিল্লা নগরীর বিষ্ণুপুর এলাকার।এ ঘটনায় কুমিল্লা কোতোয়ালি মডেল থানায় জীবনের নিরাপত্তা চেয়ে জিডি করেন ভুক্তভোগী নারী। বাচ্চু মিয়া রুমি নগরীর ১ নম্বর ওয়ার্ডের বিষ্ণুপুর এলাকার হযরত আলীর ছেলে। ২০১৯ সালের জানুয়ারিতে তার প্রতিবন্ধী ছেলেকে নগরীর ১৮ নম্বর ওয়ার্ডে বিয়ে করান।

ছেলে প্রতিবন্ধী হওয়ায় পুত্রবধূর ওপর বাচ্চুর কুনজর পড়ে। বিভিন্ন সময় গোপন প্রস্তাবও দেন। কিন্তু রাজি না হওয়ায় কৌশলে খাবারের সঙ্গে ঘুমের ওষুধ মিশিয়ে পুত্রবধূকে খাইয়ে ধর্ষণ করেন বাচ্চু। একাধিকবার ধর্ষণ করলেও বুঝতে পারেননি পুত্রবধূ। একদিন বিষয়টি বুঝতে পেরে শাশুড়িকে জানান। কিন্তু কোনো লাভ হয়নি।

শ্বশুরের হাত থেকে বাঁচতে স্বামীকে নিয়ে হাউজিং এস্টেট এলাকায় বাসা ভাড়া নিয়ে থাকতে শুরু করেন ভুক্তভোগী গৃহবধূ। গত বছরের ২০ অক্টোবর রাত ১০টার দিকে ভাড়া বাড়িতে ঢুকে পুত্রবধূকে ধর্ষণ করেন বাচ্চু। সেই সময় গৃহবধূর চিৎকারে বাচ্চুকে হাতেনাতে ধরেন আশপাশের লোকজন।

এ ঘটনায় কুমিল্লা আদালতে সরকারি খরচে আইনি সহায়তা কেন্দ্রের মাধ্যমে আদালতে অভিযোগ করেন ভুক্তভোগী গৃহবধূ। বিষয়টি আমলে নিয়ে কুমিল্লা কোতোয়ালি মডেল থানা পুলিশকে এফএআর দায়ের করার নির্দেশ দেয় আদালত। পরে বাচ্চুকে গ্রেফতার করে আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠায় পুলিশ। সম্প্রতি জামিন পান বাচ্চু। জামিনে বেরিয়ে মামলাটি তুলে নেয়ার জন্য বিভিন্ন লোকের মাধ্যমে ভুক্তভোগী গৃহবধূকে হুমকি দিতে থাকেন তিনি।

মামলা না তোলায় ২ অক্টোবর বিকেলে হাউজিং এস্টেটের গোল মার্কেট এলাকায় বাজার করতে গেলে ভুক্তভোগী গৃহবধূর ওপর হামলা চালান বাচ্চু। তবে স্থানীয়রা এগিয়ে আসায় প্রাণে বাঁচেন তিনি। এ ঘটনায় সোমবার সন্ধ্যায় কোতোয়ালি মডেল থানায় জিডি করেন ভুক্তভোগী গৃহবধূ।

ভুক্তভোগী গৃহবধূ জানান, তাকে হত্যার জন্য ঘুরে বেড়াচ্ছেন শ্বশুর বাচ্চু ও তার সহযোগীরা। মামলা তুলে না নিলে তাকে ও তার পরিবারের সদস্যদের হত্যার হুমকি দিয়ে আসছে। তিনি নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছেন।
বাদীপক্ষের আইনজীবী অ্যাডভোকেট তাহমিনা বেগম বলেন, ভুক্তভোগী ওই নারী খুবই অসচ্ছল। তাই সরকারি খরচে আইনি সহায়তা দেওয়া হচ্ছে। আসামিরা জামিনে বেরিয়ে তাকে হত্যার চেষ্টা চালিয়েছে। আমরা আদালতের কাছে আসামির জামিন বাতিল করার জন্য আবেদন করব।
কোতোয়ালি মডেল থানার ওসি আনওয়ারুল আজিম জানান, মামলাটি তদন্ত করে অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে চার্জশিট আদালতে পাঠানো হয়েছে। ভুক্তভোগী ওই নারীর অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে জিডি করা হয়েছে। বিষয়টি গুরুত্ব নিয়ে দেখা হচ্ছে।

About desk

Check Also

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় হিযবুত তাহরীর সদস্য গ্রে’ফ’তা’র।

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার কসবায় হিযবুত তাহরীর (নিষিদ্ধ ঘোষিত জঙ্গি সংগঠন) এক সদস্যকে গ্রেফতার করেছে র‍্যাব। গত শুক্রবার …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *